• ঢাকা
  • শনিবার:২০২৪:মার্চ || ২১:৫১:০৭
প্রকাশের সময় :
অগাস্ট ৩১, ২০২২,
৯:২৪ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট :
অগাস্ট ৩১, ২০২২,
৯:২৪ পূর্বাহ্ন

৪৫৭ বার দেখা হয়েছে ।

রূপগঞ্জ উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও আ. লীগ নেত্রী নীলার অব্যাহতির আদেশ প্রত্যাহার

রূপগঞ্জ উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও আ. লীগ নেত্রী নীলার অব্যাহতির আদেশ প্রত্যাহার

নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জের আওয়ামী লীগ নেত্রী ফেরদৌসী আলম নীলাকে দলীয় পদ পদবি থেকে অব্যাহতি দেওয়ার আদেশ প্রত্যাহার করেছে জেলা আওয়ামী লীগ।

মঙ্গলবার (৩০ আগস্ট) জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ মো. বাদলের স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ আদেশ প্রত্যাহার করা হয়।

এ সময় বিজ্ঞপ্তিতে নীলার জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদকসহ সব পদ থেকে অব্যাহতির আদেশ প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে।

এর আগে গত ৮ মার্চ চাঁদাবাজি, জমিদখলসহ নানা অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে দলীয় সব পদ থেকে নীলাকে অব্যাহতি দেয় নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ।

গত ৪ আগস্ট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত মো. শহীদ বাদলের স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বহিষ্কারের তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, সংগঠন বিরোধী কর্মকাণ্ডের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার দায়ে নীলার বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেয় জেলা আওয়ামী লীগ।

রুপগঞ্জের পূর্বাচল ও এর আশেপাশের এলাকায় জমি দখলসহ নানা অবৈধ কাজে দাপট ও প্রভাব খাটানোর অভিযোগ রয়েছে এই নীলার বিরুদ্ধে।

১০ আগস্ট দিনভর অভিযান চালিয়ে আওয়ামী লীগ নেত্রী ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ফেরদৌসী আলম নীলার নির্মিত ‘পূর্বাচল লেডিস ক্লাব’ ও ‘লাভ ফরেস্ট রেস্টুরেন্ট’ গুঁড়িয়ে দেয় রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)।

অভিযানে অংশ নেওয়া রাজউকের কর্মকর্তারা জানান, পূর্বাচল ১৩ নম্বর সেক্টরের ৩০৫ নম্বর রোডে প্রায় তিন বিঘা জমি প্রতিবন্ধীদের খেলার মাঠ হিসেবে সংরক্ষণ করেছিল রাজউক। এখান থেকে দুই বিঘা নীলা দখল করে তৈরি করেছেন পূর্বাচল লেডিস ক্লাব। ইতোমধ্যে ২ শতাধিক সদস্যের ক্লাবটির সদস্যপদ বিক্রি হয় তিন লাখ টাকায়। আজীবন সদস্যপদ পেতে চার লাখ আর দাতা সদস্যপদ বেচাকেনা হয় ছয় লাখ টাকায়।

জানা যায়, পূর্বাচল লেডিস ক্লাব অভিজাত শ্রেণির ক্লাবে পরিণত হয়েছিল। ক্লাবটিতে ধনীদের যাতায়াত ছিল। চারপাশে সীমানা দিয়ে ভেতরে বানানো হয়েছিল সুইমিং পুল, অফিস কক্ষ, ব্যায়ামাগারসহ কয়েকটি অবকাঠামো। ক্লাবটি গড়ে তুলে নীলা নিজেই বসেন ক্লাবের সভাপতির পদে।

রাজউকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কামরুল ইসলামের নেতৃত্বে চালানো উচ্ছেদ অভিযানে উপস্থিত ছিলেন রাজউকের জোন-৪ এর পরিচালক মুকসুদুল আরেফিন, অথরাইজড অফিসার মাসুক আহমেদ। বিপুলসংখ্যক পুলিশ সদস্য।

তারা জানান, রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ফেরদৌসী আলম নীলাসহ স্থানীয় কিছু ব্যক্তি নিজেদের প্রভাবকে কাজে লাগিয়ে অবৈধভাবে রাজউকের জমিতে বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণ করে দখল করে রেখেছেন। বিষয়টি রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নজরে এসেছে। পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বুধবার পূর্বাচলের ১৩ নম্বর সেক্টরে অভিযান চালিয়ে নীলার লেডিস ক্লাব এবং ২৪ নম্বর সেক্টরে লাভ ফরেস্ট রেস্টুরেন্টের সকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। (সূত্র: বাংলানিউজ২৪ডটকম)