• ঢাকা
  • সোমবার:২০২৪:এপ্রিল || ১৩:৫৬:২৬
প্রকাশের সময় :
অক্টোবর ৬, ২০২২,
৬:২৮ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট :
অক্টোবর ৬, ২০২২,
৬:২৮ পূর্বাহ্ন

২৪৪ বার দেখা হয়েছে ।

রূপগঞ্জে টোকেনের মাধ্যমে প্রকাশ্যে সড়কে চাঁদাবাজী

রূপগঞ্জে টোকেনের মাধ্যমে প্রকাশ্যে সড়কে চাঁদাবাজী

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে হাইকোর্টের আদেশ অমান্য করে চলছে দিন দুপুরে চাঁদাবাজী। ৫ অক্টোবর (বুধবার) উপজেলার বিভিন্ন সড়ক মহাসড়কে এমন দৃশ্য চোখে পড়ে। উপজেলার তারাবো, রূপসী, বরপা, ভূলতা, গোলাকান্দাইল, কাঞ্চন, কালাদীসহ বেশ কয়েকটি স্ট্যান্ডে গাড়ীর আকার ভেদে চাঁদাবাজী চলছে।
সড়ক-মহাসড়কে চাঁদাবাজী বন্ধে হাইকোর্ট বিভাগে দায়েরকৃত রিট পিটিশন নং ৪৬৪০/২০২২ইং এর গত ২১ মার্চ আদেশের আলোকে গত ২৫ সেপ্টেম্বর প্রকাশিত এক বিজ্ঞপ্তিতে টার্মিনাল ব্যাতিত সড়ক কিংবা মহাসড়কে কোন রকম টোল বা চাঁদা করা যাবে না মর্মে নিশেধাজ্ঞা দিয়েছে মহামান্য হাইকোট। এছাড়া বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগকেও এ ব্যাপারে অবহিত করা হয়। এক বিজ্ঞপ্তিতে স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়ের উপসচিব মোঃ আব্দুর রহমান স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে দেশের সকল সিটি কর্পোরেশন ও পৌরসভার মেয়রদের সড়ক ও মহাসড়কে কোন প্রকার টোল বা চাঁদা আদায় না করতে নির্দেশনা প্রদান করা হয়।

 

সরেজমিনে ঘুরে উপজেলার তারাবো, রূপসী, বরপা, ভূলতা, গোলাকান্দাইল, কাঞ্চন, কালাদী সর্বশেষ কাঞ্চনের মায়ার বাড়ীতে প্রকাশ্যে কাঞ্চন পৌরসভার রশিদ দিয়ে টোল আদায় বা চাঁদা উত্তোলন করতে দেখা যায়। প্রতিদিন ভূলতা গাউছিয়া এলাকার ৪টি স্ট্যান্ড থেকে গড়ে ৫ থেকে ৭ লাখ টাকা চাঁদা আদায় হয় বলে সূত্রটি জানায়।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক সিএনজি চালক বলেন, স্ট্যান্ডে গাড়ি ঢুকলেই তাদের চাঁদা দিতে হয়। চাঁদা না দিলে অনেক খারাপ আচরন করা হয়। তাছাড়া একদিন কোন কারনে চাঁদা না দিলে পরের দিন স্ট্যান্ডে ডুকলেই পুলিশ দিয়ে হয়রানী করানো হয়। ভূলতা-কাঞ্চন স্ট্যান্ড সুপারভাইজার তালাল দীর্ঘদিন যাবত এই অবৈধ টোল আদায় করছে। পুলিশ ডিউটিতো আছেই। মাসে কমপক্ষে দুই দিন স্থানীয় পুলিশকে নিয়ে সারা দিন ঘুরতে হয় গাড়ি দিয়ে।
কাঞ্চন পৌরসভার মায়ারবাড়ী স্ট্যান্ডে প্রকাশ্যে চাঁদা আদায়ের বিষয়ে স্থানীয় যুবলীগ নেতা ইসলাম উদ্দীন বলেন, আমি কাঞ্চন পৌরসভা থেকে স্ট্যান্ড লীজ নিয়ে এখানে টোল আদায় করি। মন্ত্রনালয়ের নিষেধাজ্ঞা আছে কিনা সেটা আমার দেখার বিষয় না।
এ ব্যাপারে কাঞ্চন পৌরসভার মেয়র রফিকুল ইসলাম রফির বলেন, আমরা মন্ত্রনালয়ের প্রজ্ঞাপনটি পেয়েছি। সে অনুযায়ী যারা এতোদিন আমার পৌরসভার আওতাধীন পৌর উন্নয়নে লীজ নিয়ে সড়ক মহাসড়কে টোল আদায় করতো তাদেরকে এরই মধ্যে নিষেধ করা হয়েছে।