• ঢাকা
  • সোমবার:২০২৪:এপ্রিল || ১৩:৫৭:১১
প্রকাশের সময় :
এপ্রিল ২০, ২০২৩,
১:৫৩ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট :
এপ্রিল ২০, ২০২৩,
১:৫৩ অপরাহ্ন

৮৬১ বার দেখা হয়েছে ।

রূপগঞ্জে ঈদের কেনাকাটা করতে গিয়ে গৃহবধূ খুন

রূপগঞ্জে ঈদের কেনাকাটা করতে গিয়ে গৃহবধূ খুন

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে স্বামীর সঙ্গে ঈদের কেনাকাটা করতে বের হয়ে মৌসুমী আক্তার (২৪) নামের এক গৃহবধূ খুন হয়েছেন। বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার গোলাকান্দাইল দক্ষিণপাড়া এলাকায় হত্যার ঘটনা ঘটে। পুলিশ বলছে, ওই গৃহবধূকে গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যা করা হয়েছে। হত্যার পারিপার্শ্বিক অবস্থা দেখে পুরো ঘটনাটি পূর্বপরিকল্পিত বলে মনে হচ্ছে।
নিহত মৌসুমী আক্তার রূপগঞ্জ উপজেলার গোলাকান্দাইল ৫ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণপাড়া এলাকার করিম হায়দারের মেয়ে। ৯ বছর আগে একই এলাকার চাল ব্যবসায়ী রাসেল মিয়ার সঙ্গে তার বিয়ে হয়েছিল। তাদের সংসারে মো. নাঈম নামে ছয় বছর বয়সী এক ছেলে সন্তান রয়েছে।
নিহত মৌসুমীর স্বামী রাসেল মিয়ার দাবি, রূপগঞ্জের গাউছিয়া এলাকায় ঈদের কেনাকাটা শেষে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে বাড়ি ফেরার সময় তারা সড়কে ডাকাতির শিকার হয়েছেন। এ সময় ডাকাতরা তার স্ত্রী মৌসুমীর গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যা করেছে। তখন তিনিও আহত হয়েছেন। রূপগঞ্জের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন তিনি।
জানা যায়, ঈদের কেনাকাটার জন্য বুধবার সন্ধ্যায় রাসেল মিয়া ও মৌসুমী আক্তার দম্পতি গাউছিয়া এলাকায় ঈদের কেনাকাটার জন্য যান। রাত সাড়ে ৯টায় মৌসুমীর বাবার বাড়িতে ফোন করে রাসেল জানান, কেনাকাটা শেষে বাড়ি ফেরার সময় তারা সড়কে ডাকাতির শিকার হয়েছেন। ডাকাতরা মৌসুমীকে খুন করেছে। তখন রাসেল মিয়াকেও কুপিয়ে জখম করে। পরে নিহত মৌসুমীর ভাই মো. সাজ্জাদ ও পরিবারের অন্য সদস্যরা গিয়ে লাশ উদ্ধার করে বাড়ি নিয়ে আসে।
রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ এফ এম সায়েদ জানান, নিহত মৌসুমীর বাড়ি গাউছিয়া এলাকা থেকে দুই কিলোমিটারের মধ্যে। নিহত মৌসুমীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তার স্বামীর শরীরে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। তবে পুলিশ হত্যার রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা করছে।
ভুলতা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (এসআই) মোস্তাফিজুর রহমান জানান, হত্যার ঘটনাটি রহস্যজনক। এখনই স্পষ্ট করে কিছু বলা যাচ্ছে না। সব বিষয় মাথায় রেখেই হত্যার রহস্য উদ্ঘাটনের চেষ্টা করা হচ্ছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ ১০০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।