• ঢাকা
  • শুক্রবার:২০২৪:Jun || ২০:৫৮:৫০
প্রকাশের সময় :
অক্টোবর ১৫, ২০২২,
৯:৩৯ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট :
অক্টোবর ১৫, ২০২২,
৯:৪২ পূর্বাহ্ন

৪৩৫ বার দেখা হয়েছে ।

ভুলতা-মুড়াপাড়া সড়কে সীমাহীন দুর্ভোগ, চালকদের মাঝে অসন্তোষ

ভুলতা-মুড়াপাড়া সড়কে সীমাহীন দুর্ভোগ, চালকদের মাঝে অসন্তোষ

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার অতি গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের ভুলতা-মুড়াপাড়া সড়কটির অবস্থা একবারে যাচ্ছেতাই। জায়গায় জায়গায় সৃষ্ট গর্তে পড়ে প্রায় বিকল হয়ে পড়ছে যানবাহন। এতে যানবাহন চালকদের মাঝে অসন্তোষ বিরাজ করছে। লুনা পলিমার ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড নামের একটি শিল্পপ্রতিষ্ঠান এ সড়কের পাড়াগাঁও এলাকায় বাঁধ দিয়ে পানি নিষ্কাশনের পাইপলাইন বন্ধ করে দেয়ায় সৃষ্টি হয়েছে জলাবদ্ধতা। এখানে প্রতিনিয়তই হাঁটু পানি জমে থাকে। সৃষ্টি হয়েছে ছোট-বড় গর্ত। পানির নিচে সেই সব গর্তে উল্টে পড়ছে যানবাহন। ঘটছে দুর্ঘটনা। ছয় কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের এ সড়কটি দ্রুত সংস্কার করার দাবি জানিয়েছে এলাকাবাসী।
ভুলতা ও গোলাকান্দাইল ইউনিয়নের অর্ধশত গ্রামের মানুষ নিত্য প্রয়োজনে এই সড়ক দিয়ে উপজেলা কমপ্লেক্স, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, রূপগঞ্জ থানা, রূপগঞ্জ সাব-রেজিস্ট্রি অফিস, উপজেলা ভূমি অফিস, সরকারি মুড়াপাড়া কলেজসহ গুরুত্বপূর্ণ অফিসে যাতায়াত করে থাকেন। চরম দুর্ভোগের মধ্যেই তারা বাধ্য হয়ে এই সড়কে চলাচল করছে। বর্তমানে সড়কের অধিকাংশ স্থানে কার্পেটিং উঠে গেছে। কার্পেটিং ওঠে যাওয়া অংশে ইটের সলিং করে জোড়াতালি দিয়ে কোনোরকমে চলাচলের ব্যবস্থা করা হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে সড়কটির কোনো সংস্কার হয়নি। জায়গায় সৃষ্টি হয়েছে ছোট বড় গর্ত।
পাড়াগাঁও গ্রামের ইকবাল হোসেন বলেন, ভুলতা-মুড়াপাড়া সড়কটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। জনজীবনে বেড়েছে দুর্ভোগ। দীর্ঘদিন ধরে সড়কটির এমন অবস্থা।
আড়াইহাজার উপজেলার চৌবাড়িয়া গ্রামের লিলি বেগম মেয়ে বিয়ে দিয়েছেন রূপগঞ্জের বাড়ৈইপাড় গ্রামে। সেই সূত্রে তিনি এই সড়কে প্রায়ই আসা-যাওয়া করেন। পাড়াগাঁও এলাকায় এ প্রতিবেদকের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, এ সরকারের আমলে রূপগঞ্জ ও আড়াইহাজারে উন্নয়ন হয়েছে। কিন্তু ভুলতা-মুড়াপাড়া সড়কের বেহাল দশায় সকল উন্নয়ন বিফলে যেতে বসেছে।
এদিকে লুনা পলিমার ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কামাল হোসেন তাদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, সড়কের পানি নিষ্কাশন বন্ধে কোনো বাঁধ দেয়া হয়নি। তবে কেউ বাঁধ দিয়ে থাকলে তা দ্রুত সরিয়ে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা নেয়া হবে।
রূপগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী জামাল উদ্দিন বলেন, ভুলতা-মুড়াপাড়া সড়কের সংস্কার কাজের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। শিগগিরই সড়কের সংস্কার কাজ হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।
নারায়ণগঞ্জ সড়ক বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী সামিউল কাদের খান বলেন, সড়কের আশপাশের শিল্প প্রতিষ্ঠান ও লোকজন সড়কের পানি নিষ্কাশনের ড্রেন বাঁধ দিয়ে বন্ধ করে দেয়ায় জটিলতা বাড়ছে। তবে আগামী দুই-তিন মাসের মধ্যে ভুলতা থেকে মুড়াপাড়ার মঙ্গলখালী পর্যন্ত চার কিলোমিটার ৩০০ ফুট দীর্ঘ সড়কটি আরসিসি করে নির্মাণ করা হবে। সড়কের বাকি অংশ পরে নির্মাণ করা হবে।