• ঢাকা
  • শুক্রবার:২০২৪:মে || ০৪:১২:৫৫
প্রকাশের সময় :
সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২২,
৪:৩০ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট :
সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২২,
৪:৩০ অপরাহ্ন

৪৪৪ বার দেখা হয়েছে ।

বিএনপির ত্যাগী নেতা মারা গেলেও দলে মূল্যায়ন নেই

বিএনপির ত্যাগী নেতা মারা গেলেও দলে মূল্যায়ন নেই

বিএনপির দু:সময়ে আন্দোলন সংগ্রাম করতে গিয়ে বহুবার রাজপথে হামলার শিকার, কালো পতাকা মিছিল, মানববন্ধন, সরকার হটাও আন্দোলন, অনশনসহ বিগত দিনে অসংখ্য কর্মসূচি পালন করেছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা ওলামাদল। ২০০৩ সাল থেকে জেলায় একক নেতৃত্ব দিয়ে জীবন বাজি রেখে দলের জন্য কাজ করেছেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের কেন্দ্রিয় কমিটির সহসভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ জেলা ওলামাদলের সভাপতি সামছুর রহমান খান বেনু। তিনি গত মঙ্গলবার ইন্তেকাল করেন। কিন্তু তার জানাজায় ওয়ার্ড থেকে শুরু করে বিএনপির কোনো নেতাকর্মী অংশ নেয়নি। মঙ্গলবার (১৩ সেপ্পেম্বর) নারায়ণগঞ্জ জেলা ওলামাদল মদনপুরে আয়োজিত শোক সভায় জেলা ওলামাদলের সিনিয়র সহসভাপতি আলহাজ্ব মাজহারুল ইসলাম হিরন উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। নারায়ণগঞ্জ জেলা ওলামাদলের সহসভাপতি আব্দুল হাই তালুকদারের সভাপতিত্বে আয়োজিত সভায় বক্তব্য দেন- জেলা ওলামাদলের সাধারণ সম্পাদক ডা. ইউনুস, যুগ্ন সম্পাদক কামাল খান, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক মাওলানা মজিবুল্লাহ, আড়াইহাজার থানা ওলামাদলের সভাপতি নাছির উদ্দিন মোল্লা, সোনারগাঁও থানা ওলামাদলের সভাপতি মাওলানা আল আমিন প্রমুখ।
বক্তারা আরো বলেন, সামছুর রহমান খান বেনু নারায়ণগঞ্জের তারাব পৌরসভার যাত্রামুড়া এলাকার বাসিন্দা। তিনি বিগত দিনে নিজ এলাকা থেকে শুরু করে বিএনপির কেন্দ্রিয় নেতাদের সাথেও সুসম্পর্ক ছিল। তারেক রহমানের সাথেও একাধিকবার ভার্চ্যুয়ালী সভা করেছেন। দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শোকবার্তা দিলের বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবকদল, শ্রমিকদলের কোনো নেতাকর্মী তার জানাজায় অংশ নেয়নি।
শোক সভায় বক্তারা বলেন, বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের সিনিয়র সব নেতাদের বেনু খানের ইন্তেকালের বিষয়টি জানানো হয়েছিল। কেন্দ্র থেকে শুরু করে ওয়ার্ড পর্যায়ের কোনো নেতা জানাজায় অংশ নেয়নি। কেউ শোক প্রকাশও করেনি। অথচ বিএনপির আন্দোলন সংগ্রামে সবচেয়ে বেশি সভা, সমাবেশ ও কর্মসূচি পালন করেছে নারায়ণগঞ্জ জেলা ওলামাদল। এই দলের নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতির মৃত্যুতেও বিএনপি কোনো শোক প্রকাশ করেনি। কেউ বাসায় এসে খবরও নেয়নি। অথচ ওলামাদলের প্রতিটি নেতাকর্মী বেনু খানের শূণ্যতায় প্রতিনিয়ত কাঁদছে। বিএনপির দু:সময়ে জেলা বিএনপি যখন আন্দোলন সংগ্রাম ফটোসেশনের মধ্যদিয়ে পালন করেছে, তখন ওলামাদল মাঠে ময়দানে কাজ করেছে।
নারায়ণগঞ্জ জেলা ওলামাদলের সিনিয়র সহসভাপতি আলহাজ্ব মাজহারুল ইসলাম হিরন জানান, সামনের বিএনপির কঠিন সময় আসছে। তখন রাজপথে নেতাকর্মীদের থাকতে হবে। অনেক হামলা, মামলার শিকার হতে হবে। দলের নেতারা মারা গেলেও যদি মূল্যায়ন না পায় তাহলে কেউ জীবন বাজি রেখে আর কোনো কর্মসূচি পালন করবে না। দলকে শক্তিশালী করতে হলে নেতাকর্মীদের অবশ্যই মূল্যায়ন করতে হবে। পরে বিএনপির চেয়ারপাসর্ন বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থ্যতা কামনায় দোয়া করা হয়।