• ঢাকা
  • সোমবার:২০২৪:এপ্রিল || ১৩:৩৬:২৭
প্রকাশের সময় :
জুন ১৮, ২০২৩,
৫:৩৯ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট :
জুন ১৮, ২০২৩,
৫:৪০ অপরাহ্ন

২৯৬ বার দেখা হয়েছে ।

বাবার হিরোইনদের মারতে যেতেন একতা

বাবার হিরোইনদের মারতে যেতেন একতা

বাবার প্রতি মেয়েদের আলাদা টান থাকে, একথা সর্বজনস্বীকৃত। সেই বাবার ভালোবাসায় অন্যরা ভাগ্য বসাবেন তা যেন মানতেই পারেন না কোনো মেয়ে। যেমনটি মানতে পারেননি ভারতীয় ‘টেলিভিশন কুইন’ একতা কাপুর। বাবা বর্ষীয়ান বলিউড অভিনেতা জিতেন্দ্র। তার সঙ্গে নায়িকারা অভিনয় করতে গেলেই রীতিমতো তাদের মারতে যেতেন জিতেন্দ্রকন্যা।
তখন বেশ ছোট ছিলেন একতা। বয়স চার কি পাঁচ হবে। বাবাকে নিয়ে সারাজীবন খুব পসেসিভ তিনি। সেই কারণেই এসব করতেন। একবার নিজের মুখেই এসব স্বীকারোক্তি দিয়েছিলেন একতা।
তিনি বলেন, ‘আমি বাবাকে নিয়ে খুব পসেসিভ। বাবার সঙ্গে কাউকে কথা বলতে দিতাম না। বাবা কারোর দিকে তাকিয়ে হাসতে পারবে না। আমার বাবা, মানে শুধুই আমার। বাবার সব ছবির শুটিং হতো কাশ্মীরে। আর আমরা যেতাম সেখানে। বাবার যত হিরোইন সবাইকে আমি মারতে যেতাম। এটা আমার কাজ হয়ে গিয়েছিল। সেই কারণে আমায় পরের দিকে বাবা আর যেতে দিত না। এসবই করতাম আমি।’
মেয়ের মুখে এসব কথা শুনে নিজেই হেসে ফেলেন জিতেন্দ্র। মেয়ের কাণ্ডে তখন ব্যতিব্যস্ত হলেও আজ সেই মেয়েকে নিয়ে বেশ গর্বিত তিনি। কেননা, টেলিভিশনে অনেকের ক্যারিয়ার গড়ে দেওয়ার কারিগর তার মেয়ে। তাই তো তাকে ভারতের ‘টেলিভিশন কুইন’ বলা হয়। ২০২০ সালে শিল্পকলা ও অভিনয় জগতে বিশেষ অবদান রাখার জন্য ‘পদ্মশ্রী’তে ভূষিত করা হয় একতা কাপুরকে।