• ঢাকা
  • সোমবার:২০২৪:ফেব্রুয়ারী || ১১:৪৫:১৯
প্রকাশের সময় :
অক্টোবর ১, ২০২২,
৫:১২ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট :
অক্টোবর ১, ২০২২,
৫:১২ অপরাহ্ন

৮৫ বার দেখা হয়েছে ।

না.গঞ্জে মির্জা আজম ‘সম্মেলনে এক ও অভিন্ন দেখাতে চাই’

না.গঞ্জে মির্জা আজম ‘সম্মেলনে এক ও অভিন্ন দেখাতে চাই’

নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (১ অক্টোবর) বেলা ১১টায় নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের জেলা কার্যলয়ে ওই সভার আয়োজন করা হয়েছে।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই’র সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এড. আবু হাসনাত মো. শহীদ বাদল (ভিপি বাদল) এর সঞ্চালনায় এই সভার কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম।

বর্ধিত সভাপূর্ব বক্তব্যে মির্জা আজম বলেন, আগামী ২৩ অক্টোবর নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে। আমরা যেহেতু সম্মেলনের আগেই সব জেলায় এই বর্ধিত সভা করে থাকি। আজকে থেকে আগামী ২২ তারিখ পর্যন্ত এই কমিটির মেয়াদ আছে। এর পরেই এই কমিটি বিলুপ্ত হবে। এবং নতুন কমিটি গঠন করা হবে। সারা দেশে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক কাজ যেভাবে করে আসছে, নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর ঠিক তার ব্যাতিক্রম হয়েছে। আমাদের সাংগঠিক নিয়ম অনুযায়ি কমিটির মেয়াদ থাকে ৩ বছর কিন্তু সেখানে অলরেডি আরও ২ বছর অতিবাহিত হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক যে সমস্যা গুলো আছে এগুলো কিন্তু বাংলাদেশের অন্যান্যরা জানে। সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন ও সংসদ নির্বাচন নিয়ে মিডিয়ার মাধ্যমে কিন্তু নারায়ণগঞ্জের অভ্যন্তরিন অবস্থা বাংলাদেশের অন্যান্য জেলার মানুষগণ দেখে। কারণ সবাই জানে নারায়ণগঞ্জের আওয়ামী লীগের দ্বিধাদ্বন্দ্বের অপশন রয়েছে। এখানে দুই পক্ষ কিছু করলো না, কিন্তু তৃতীয় পক্ষ একটা সুযোগ নিলো। তাহলে সারা বিশ্বের মানুষ বিশ্বাস করবে আসলে তাদের মধ্যে কোন খুত আছে। তাই চোখ কান খোলা রেখে এই সম্মেলন দুটি করতে চাই।

মির্জা আজম আরও বলেন, বাংলাদেশের মধ্যে আলোচিত একটি জেলা নারায়ণগঞ্জ। তাই আলোচিত একটি বড় সম্মেলন করে আমরা নতুন করে আলোচনায় আসতে চাই। অতিতের সমস্ত ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ এক ও অভিন্ন তারই একটা নমুনা আমরা সকলের মধ্যে দেখাতে চাই। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ভাই নির্দেশনা দিয়েছেন, একটি উন্মুক্ত স্থানে আওয়ামী লীগের সম্মেলন হবে। আপনারা একটা বিশাল জায়গা নির্ধারণ করেন। যেহেতু একদিন পরেই মহানগরের সম্মেলন, একই পেন্ডেলে একই জায়গায় যাতে ওই সম্মেলন করতে পারি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য, বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গাজী গোলাম দস্তগীর বীর প্রতীক, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য আনোয়ার হোসেন, শাহাবুদ্দিন ফরাজী, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী, নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু, সংরক্ষিত আসনের সাবেক সংসদ সদস্য হোসনে আরা বাবলী, সাবেক এমপি এমদাদুল হক ভুইয়া, সাবেক এমপি আব্দুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত, সোনারগাঁও উপজেলা চেয়ারম্যান এড. সামসুল ইসলাম ভুইয়া, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মিজানুর রহমান বাচ্চু, যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, ডা. আবু জাফর চৌধুরী রিরু, ইকবাল পারভেজ, সাংগঠনিক সম্পাদক মীর সোহেল, আবু সুফিয়ান, উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মো. নাসির উদ্দিন প্রমুখ।