• ঢাকা
  • শুক্রবার:২০২৪:মে || ০৪:৩৪:২৬
প্রকাশের সময় :
ফেব্রুয়ারী ১৭, ২০২৩,
৩:৫৭ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট :
ফেব্রুয়ারী ১৭, ২০২৩,
৩:৫৮ অপরাহ্ন

৪৪৯ বার দেখা হয়েছে ।

কেন্দ্রে অভিযোগ দিয়ে রূপগঞ্জ বিএনপির বির্তকিত ১৪ নেতার পদত্যাগ

কেন্দ্রে অভিযোগ দিয়ে রূপগঞ্জ বিএনপির বির্তকিত ১৪ নেতার পদত্যাগ

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার কাঞ্চন পৌরসভা বিএনপির নবগঠিত আহ্বায়ক কমিটিতে নেতাকর্মীদের অবমূল্যায়নের অভিযোগ এনে পদত্যাগ করেছেন ১৪ জন নেতা। বুধবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) রাতে একসঙ্গে তারা পদত্যাগ করেন। তবে ওইসব নেতারা গত ১০ বছরের মধ্যে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের কোনো মিটিং মিছিল, সমাবেশে অংশ নিয়েছেন এমনও তথ্য নেই। তাদেরকে বিএনপিতে মূল্যায়ন করাও দলের জন্য ভুল ছিল বলে কাঞ্চন পৌর বিএনপির ত্যাগী নেতারা মনে করেন।
এদিকে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের কাছে লিখিত আকারে একটি অভিযোগ জমা দিয়েছেন পদত্যাগকারী নেতারা। তারা হলেন- কাঞ্চন পৌরসভার যুগ্ম আহ্বায়ক ও সাবেক মেয়র দেওয়ান আবুল বাশার বাদশা, যুগ্ম আহ্বায়ক নয় নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. আমজাদ হোসেন, যুগ্ম আহ্বায়ক মো. জাকির উদ্দিন, সদস্য মো. শরিফ, মো. মকবুল হোসেন, মো. নবিউল্লাহ, রফিকুল ইসলাম রফিক, জাহাঙ্গীর হোসেন, মামুনুর রশিদ, আজগর আলী, সামসুদ্দিন মিয়া, ইব্রাহিম মিয়া।
পদত্যাগকারী নেতারা দাবি করেন, নবগঠিত আহ্বায়ক কমিটিতে অযোগ্য, আওয়ামী লীগের সঙ্গে আঁতাতকারী ও নিষ্ক্রিয়দের পদায়ন করা হয়েছে। কমিটিতে ত্যাগী ও আন্দোলন সংগ্রামে নেতৃত্বদানকারী নেতাকর্মীদের বাদ দেয়া হয়েছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে কমিটি থেকে তারা পদত্যাগ করেছেন।
অথচ বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান ভুঁইয়া দিপু মাঠে থেকে কঠোর পরিশ্রমের পর যথন আবুল বাশার বাদশাকে কাঞ্চন পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত করেন। কিন্তু মেয়র নির্বাচনের পর বিএনপি থেকে সরে দাঁড়ান মেয়র বাদশা। আওয়ামী লীগের সঙ্গে আঁতাত করে এলাকায় কর্মকান্ড চালিয়েছেন। কোনো প্রকার যোগাযোগ না করেই আওয়ামী লীগের কর্মকান্ড চালায় মেয়র বাদশা। বিএনপির কোনো কর্মসূচিতে না থাকায় পরবর্তী নির্বাচনে মোস্তাফিজুর রহমান ভুঁইয়া দিপু মেয়র বাদশার পক্ষে কাজ না করায় জামানত হারান।
গত ৪ ফেব্রুয়ারি কাঞ্চন পৌরসভা বিএনপির ৪১ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি। ওই কমিটিতে আহ্বায়ক করা হয়েছে কাঞ্চন পৌরসভার সাবেক মেয়র মজিবুর রহমান ভুঁইয়া, সদস্য সচিব করা হয় কাউন্সিলর মফিকুল ইসলাম খানকে।